Thursday, March 29, 2018

উপনিবেশ বিরোধী চর্চা২৬ - ঔপনিবেশিকতাবাদ এবং তার জ্ঞানচর্চার আঙ্গিক - সাম্রাজ্যের মন ও মান ।। বারনার্ড কোহন

অধ্যায়২
ব্রিটিশ ভাষা পরিকল্পনার কেন্দ্রে হিন্দুস্তানি

দুবছরের মধ্যে গিলক্রিস্ট সেনা বাহিনীয় কাজ ছেড়ে ফৈজাবাদে বাস করতে শুরু করে এবং এমন কাপড়চোপড় পরতে শুরু করে যাতে তাকে একজন দেশি মানুষের মত মনে হয়। তিনি কিছু প্রখ্যাত হিন্দুস্তানিকে (তিনি বলেছেন উত্তরভারতে হিন্দু মুসলমানকে এইনামেই সকলে ডাকত) নিয়ে তাদের শব্দকোষ আর ব্যকরণ রচনা করার কাজ শুরু করেন। তার সাথীরা তাকে তাদের কোন শব্দকোষ দিতে না পারায় তিনি মৌখিকভাবে বলিয়ে তাদের বিপুল শব্দভাণ্ডারের কিছু চেনা শব্দ দিয়ে কাজ শুরু করেন। তিনি তার মুন্সিকে বলেন a, ab, abab, abach এবং এইরকমের উচ্চারণ দিয়ে শুরু শব্দ জোগাড় করে তাকে দিতে। তিনি যে দল(সিলেবল) শুরু করলেন তাতে বিপুল শব্দের ভাণ্ডার তৈরি হল। এই পদ্ধতিটা তার পছন্দ হল না, তিনি জনসন্সের ইংলিশ ডিক্সনারির পথ ধরলেন। গিলক্রিস্ট একটি ইউংরেজি শব্দ বলতেন এবং তার সঙ্গীদের তাদের ভাষায় সেটির সব থেকে কাছের মানে ওয়ালা শব্দ খুঁজতে বলতেন।
তিনি খুব তাড়াতাড়ি আবিষ্কার করলেন যে তার সাথীরা খুব সহজ, দৈনন্দিনের, পরিচিত শব্দ না বলে দূরের কোন দেশের যেমন পারস্যের কোন পাহাড়ের বা আরবের মরুভূমির শব্দ খুঁজছে। অন্য কেউ সংস্কৃত জটিল শব্দবন্ধের মধ্যে বাক্যের মানে খূঁজছে। এটায় গিলক্রিস্টের টিকা করতে অসুবিধে হল তাই নয়, তিনি বার বার প্রশ্ন করতে থাকলেন যে নিশ্চই তাদের ভাষার কোন ব্যকরণ বই থাকবে। তারা তার উত্তরে না বলল। শেষমেশ যা তৈরি হল তা যেন প্রাথমিক বিদ্যালয় পাঠের শব্দাবলীর তালিকা।
তিনি তার সাথীদের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ আনলেন। অন্যান্য ঔপনিবেশিকদের মত তারও ধারনা জন্মাল যে শিক্ষিত দেশিয়রা ব্রিটিশদের বিপুল ভারতের জনগনের কাছে পৌঁছতে দেয় না। তিনি তাত্ত্বিকভাবে লিখছেন, দ্যাট ইট ইজ নট ইম্প্রোবাবল দ্যাট দ্য করবরেন্ট ক্রু অব দেওয়ানস, মুতসুদ্দিজ, সরকার্স, নাজিরস, পন্ডিতস, এন্ড আ ট্রিমেন্ডাস রোল কল অব হারপিস হু এনকম্পাসেস পাওয়ার হিয়ার সি উইথ জেলাস সলিটিউড এভরি এটেমটস ইন দেয়ার মাস্টার্স টু একয়ার দ্য মিনস অব ইমিডিয়েট কমিউনিকেশন উইথ দ্য গ্রেট মাস অব পিপল হু দোজ লকাস্টস অব দ্য ল্যান্ড কন্সিভ দেয়ার লফুল প্রে।

কিন্তু গিলক্রিস্টের পুর্বসূরীরা কেন হিন্দুস্তানিকে এমন অবহেলা করল। তিনি তার বইতে এই প্রশ্নের জটিল উত্তর খুঁজেছেন। তার মনে হয়েছে ব্রিটিশেরা এই ভাষাকে জার্গন দেগে দিয়েছিল। অধিকাংশ ইওরোপিয় যাকে মুর্স ভাষা বলত, তিনি তাকে হিন্দুস্তানি বললেন। মুর্স আজকের লব্জে পিজিন বা বিকৃত বাণিজ্যিক ভাষা। মুরকে গিলক্রিস্ট বললেন বারবারিয়ান গ্যাবল (হুইচ) এক্সিস্টস নোহয়ার এলস বাট এমং দ্য ড্রেগস অব আওয়ার সার্ভ্যান্টস, ইন দ্য শিপ স্ন্যাপ ডায়ালগস উইথ আস অনলি। ইভন দে উড নট ডিগ্রেড দেমসেলভস বাই চ্যাটারিং দ্য গিব্বারিশ অব দ্য স্যাভেজ হোয়াইল কনভার্সিং উইথ আড্রেসিং ইচ আদার ইন দ্য ক্যাপাসিটি অব হিউম্যান বিইংস।
Post a Comment