Friday, August 2, 2013

নীল চাষ, বাংলা আর বাংলার নবজাগরণের অগ্রদুতেরা৩, Indigo, Bengal & Some Renaissance Hero3

কলোনাইজেশনে জমিদারদের বিরোধিতা
দ্বারকানাথ আর রামমোহনের কলোনাইজেশনের প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে কোমর বেঁধে নামলেন ভারতের জমিদারদের সংগঠণ তাঁরা সরকারকে লিখলেন নীলকরদের অত্যাচারের নানান উদাহরণ উল্লেখ করে কার কথা কে শোনে ততদিনে বাঙলার ব্যাপ্ত শিল্প পরিকাঠামো ধংস করেফেলেছে ব্রিটিশ সাম্রাজ্য ১৮০০ পর্যন্ত, ভারত, পারস্য আর চিন, বিশ্বের শিল্প উতপাদনের ৮০ শতাংশের কাছাকাছি পরিমাণ রপ্তানি করত, সেই বাঙলা তথা ভারতের শিল্প উত্পাদন পরিকাঠামো ধংস করে দেওয়া হয়েছে চিনের মানুষকে আফিমের মৌতাতে বুঁদ করে রেখেছে চিনে প্রথম আফিম যুদ্ধের প্রস্তুতি নেওয়া চলছে কূটনৈতিক পর্দার পিছনে, ক্যান্টন আর লন্ডনের কথা চালাচালিতে নতুন শতকের ৩০ বছর কেটে গিয়েছে
বাঙলা লুঠের অর্থে, ভারত তখন প্রায় বিনাপুঁজিতে গড়ে ওঠা ব্রিটেনের শিল্পের কাঁচামাল যোগানোর উপনিবেশমাত্র দ্বারকানাথ, রামমোহনেরা তাদের কাজের আড়কাঠি বাঙলার কাঁচামাল সংগ্রহ করতে দাম দিতে হয় না প্রায় বিনা মজুরিতে তৈরি হল ব্রিটেনের শিল্পের কাঁচামালের আড়ত - ভারতবর্ষ ১৮৪০এ ম্যনচেস্টার চেম্বার অব কমার্সএর সভাপতি টমাস বেজলে বলছেন, ইন ইন্ডিয়া দেয়ার ইজ এন ইমেন্স এক্সটেন্ট অব টেরিটরি, এন্ড দ্য পপুলেশন অব ইট উড কনজিউম ব্রিটিশ ম্যানুফ্যাকচার্স টু আ মোস্ট এনরমাস এক্সটেন্ট দ্য হোল কোশ্চেন উইথ টু আওয়ার ইন্ডিয়ান ট্রেড ইজ হোয়েদার দে ক্যান পে আস, বাই দ্য প্রোডাক্টস অব দেয়ার সয়েল, ফর হোয়াট উই আর প্রিপিয়ার্ড টু সেন্ড আউট এজ ম্যানুফ্যাকচার্স ১৮৩৩এর সনদের ৮১-৮৬ ধারায় ভরতে ব্রিটিশ নাগরিকদের যথেচ্ছ জমি খরিদ আর বসবাসের অধিকার দেওয়াল বলাহল, Natural born subject of His Majesty to proceed by sea to the Company’s possessions, to reside therein, to acquire & hold lands or to make profits out of such residence without licence
১৮৩৩এর সনদের ১৮৩৪এর ১০ ডিসেম্বরের ডেসপ্যাচে ভারতে ইওরোপিয়দের free ingress শব্দবন্ধটিকে বিশ্লষণ করে বলাহল, The regulations which you shall make with the just and human design of protecting the natives from ill treatment must not be such as to harass the Europian with any unnecessary restraints or to give him uneasiness by the display of improper diatrust and suspicion ১৮৩৩সালের সনদের তিন দশক কেটে যাওয়ার পর  একটা বিষয় বেঝা গেল, যে বিষয় নিয়ে রামমোহন-দ্বারকানাথ লড়াই করলেন, তার মূল উদ্দেশ্য ছিল, নিজেদের ব্যবসায়িক স্বার্থকে আরও বেশি প্রযোজনা প্রণোদিত কিন্ত তাঁদের এই লাভেরকড়ি বাঙলার রায়তদের জীবনে বিষবত্ পরিণতি ডেকে আনে এস ডি কোলেট তাঁর লাইফ এন্ড লেটার্স অব রামমোহন রায় পুস্তকে রামমোহন রায়ের কলোনাইজেশনের তত্বের বন্ধুত্বপূর্ণ সমর্থন খুঁজে পেয়েছেন এক বাঙালি জনদরদী বামপন্থী নেতা সুশোভন সরকারের মধ্যে- An outcry of the baster order of nationalism having been raised against the indigo planters of Bengal, Ram Mohan come boldly to the defence of those aspesed Europians.  Sushovon Sarkar, in the days of Ram Mohon, the cultivation of indigo still seemed to be a forward move away from traditional agriculture and holding out hopes of material advancement for the peasents. The oppressive aspect of the system was yet underdeveloped and little known (http://www.jstor.org/pss/3516354). শেষ লাইনটি আরও একবার পড়তে এবং ভাবতে অনুরোধ করি
-BD�q��0�HΦেখিয়াছি নীল চাষের জমির নিকটবর্তী অঞ্চলে অধিবাসীদের জীবনযাত্রার মান অনেক উন্নত ...নীলকরদের দ্বারা হয়ত সামান্য কিছু ক্ষতি সাধিত হইতে পারে কিন্তু সরকারি কিংবা বেসরকারি যত ষুরেপীয় এখানে আছেন তাহাদের যেকোনও  অংশের তুলনায় নীলকর সাহেবগণ এদেশীয় মানুষের অকল্যাণের তুলনায় কল্যাণই বেশী করিয়াছেন

দ্বারকানাথ তাঁর স্মারকলিপিতে স্পষ্টভাষায় ইংরেজ এবং নীলকরদের পক্ষে লিখছেন, আমি দেখিয়াছি, নীলের চাষ এদেশের জনগণের পক্ষে সবিশেষ ফলপ্রসূ হইয়াছে জমিদারগণের সমৃদ্ধি ও ঐশ্বর্য বহুগুণে বৃদ্ধি পাইয়াছে এবং কৃষকদেরও বৈষয়িক উন্নতি সাধিত হইতেছে যে এঞ্চলে নীলের চাষ নাই সে অঞ্চলের তুলনায় নীল চাষের এলাকা ভুক্ত আঞ্চলের মানুষ অধিকতর সুখ স্বাচ্ছন্দ্য ভোগ করিতেছে ...আমি ইহা কেবল জনশ্রুতির উপর নির্ভর করিয়া বলিতেছিনা, প্রত্যক্ষদর্শী হিসাবে নিজের অভিজ্ঞতা হইতে আমি ইহা বলিতেছি দ্বারকানাথ তার উক্তির সত্যতা প্রমাণের জন্য নিজের জমির কথা উল্লেখ করেবলছেন, পূর্বে এই জমি হইতে সরকারী খাজনা দিবারমত যথেষ্ট আয় হইতনা কিন্তু এখন এই জমি হইতে আমি যথেষ্ট মুনাফা লাভ করিতেছি এমনকী আত্মীয়বন্ধুরাও যে তাঁদের জমি থেকেও নীলচায করে যথেষ্ট আয় করছেন তাও তিনি সরাসরি উল্লেখ করতে ভোলেন নি(বাঙলায় সব উদ্ধৃতিই, সুপ্রকাশ রায়, ভারতের কৃষক স্বাধীণতা সংগ্রাম ও গণতান্ত্রিক সংগ্রাম থেকে নেওয়া)।


Post a Comment