Saturday, May 21, 2016

দ্য মুঘল এডমিনিস্ট্রেশন যদুনাথ সরকার

তৃতীয় অধ্যায়
অর্থ ও ঘরগেরস্তি(হাউসহোল্ড) দপ্তর২
দেওয়ানের দপ্তরে কোন কোন নথি আসত
যে সব ক্যাশ ব্যালেন্স(tahvils) নথি দেওয়ানের দপ্তর হয়ে যেত, সেগুলি হল,
ক) সিয়াহা(ডেলি লেজার – দৈনন্দিনের আর ও ব্যয়) এবং আওয়ারিজা(an abstract account of receipts and disbursements; a rough notebook)
অ) বিভিন্ন ফান্ড(খাজিনা>খাজনা)
১। ইতবা – লোকলস্কর বা কর্মচারী
২। আহদিজ(জেন্টলম্যান ট্রুপার্স)
৩। ইনাম বা পুরস্কার,
৪। জেনানা মহল
৫। হরিণ উদ্যান
৬। বাজিয়াপ্তিইমুশাইদাত – কর্মচারীদের অগ্রিম বাবদ আদায়
৭। বিভিন্ন বকেয়া
৮। বার্ক-আন্দাজেজ বা দ্বাররক্ষী বা শস্ত্র আর ঢাল হাতে রক্ষীরা
৯। বিভিন্ন জরিমানা
১০। খরচিকুল – সাধারণ ব্যয়
১১। খোরাকিইকুল, পশুদের খাদ্য
১২। সাধারণ ভৃত্য, শাগির্দপেশা
১৩। বালা – সম্রাটের নির্দেশে কোন একজন সৎ মানুষের হাতে সোনা আর রূপার মুদ্রা দিয়ে আমদরবারে(পাব্লিক অডিয়েন্স হল) দাঁড় করিয়ে দেওয়া হত, যে সেইগুলি কোন গরীবকে তাঁর অবস্থা বোঝা মাত্রই দিয়ে দিত। সম্রাট তার ভরসার এক প্রখ্যাতকে বেশকিছু অর্থ দিয়েছিলেন এই কাজ করার জন্য(হিন্দিতে যার নাম বালা - bahlah)। তাই এই খরচকে কেন খরচিইবালা বলা হত(আইনিআকবরি)।
১৪। জাগির পাওয়ার বিনিময়ে প্রাপ্ত অর্থ(ইয়ুজিজাগির)
১৫। বেগমদের খরচ
১৬। কিরায়া - মালবাহক আর গাড়িটানা পশুদের পিছনে খরচ
১৭। নিমগোষি আর পাওগোষি(?)
১৮। মবলঘি – রেডি মানি
১৯। অগ্রিম বা মুসাইদাত
২০। সম্রাটকে নজর
২১। মিন্টিং বা জারাবাত
২২। ফসলের ক্ষতি – পাইমালিইজারাত
২৩। হারেমের ভৃত্য – খাদিমান
(চলবে)
Post a Comment