Friday, May 6, 2016

নতুন সরকারের কাছে গ্রাম উতপাদক(ছোট উৎপাদক, তাঁতি আর চাষী)দের আপাতত ১১ দফা দাবি

১। গ্রামের বিকাশকে নিজের মত করে হতে দিতে হবে - কর্পোরেট স্বার্থ নয় বাংলার পরম্পরার গ্রামীণদের স্বার্থ আগে দেখতে হবে -
২। কৃষিতে দেশিয় প্রথায় চাষের উদ্যোগ নিতে হবে -
৩। গ্রামের উৎপাদন এবং তা বিতরণের স্বার্থ প্রথমে দেখতে হবে -
৪। গ্রামে যে বাজার/হাট রয়েছে সেগুলিকে আরও জোরদার করতে হবে -
৫। যে প্রকল্পগুলি বিগত সরকার নিয়েছে সেগুলি আরও জোরদার করতে হবে-
৬। গ্রাম উদ্যোগীদের জন্য নতুন মন্ত্রক তৈড়ি করতে হিবে - ক্ষুদ্র, কুটির শিল্প মন্ত্রকের যে উদ্দেশ্য তা দিয়ে গ্রামীন উৎপাদনের স্বার্থ রক্ষা হয় না - ক্ষুদ্র শিল্পে ১০ লাখ টাকা ন্যুনতম বিনিয়োগ সেবা ক্ষেত্রে আর উতয়াদনে ২৫ লাখ টাকা বিনিয়োগ - এটাকাটা হয়ত সারা জীবন ধরে একজন গ্রাম উতয়াদন রোজগারই করতে পারেন না - আর তাঁদের পুঁজি দক্ষতা আর জ্ঞান - ধারের যোগ্যতা নয় - ব্যাঙ্কে যাওয়ার যোগ্যতা নয়-
৭। পরম্পরার জ্ঞান যাতে আরও ছড়িয়ে দেওয়া যায় তার ব্যবস্থা করতে হবে-
৮। বিশ্ববাংলার বাজার বাড়াতে হবে - শুধু উচ্চশ্রেণীর নয় মধ্যবিত্তের জন্য দেশিয় পণ্যের বাজার খুলতে হবে -
৯। তাঁতি কৃষক আর গ্রাম শিল্পীরা যাতে বড় পুঁজির কাছে হেরে উচ্ছেদ না হয়ে যান তার জন্য সঠিক ব্যবস্থা নিতে হবে -
১০। বড় কারখানা নয় ছোট বিনিয়গের সম্ভাবনা তৈরি করতে হবে - মমতাদিদি যাকে বলেছেন তেলেভাজা শিল্প - তাঁকে সাধারণভাবে ধরে সেই ব্যবস্থার নষ্ট হয়ে যাওয়া বাস্তুতন্ত্র নতুন করে তৈরি করতে হবে-
১১। দেশিয় গ্রামীন(শুধু আয়ুর্বেদ নয়) চিকিৎসা ব্যবস্থা, তার ওষুধ তৈরির কাজকে বড় পুঁজির স্বার্থ নির্ভর করা যাবে না

এটা সাধারণভাবে দাবি - হঠাত করে মনে এল লেখাগেল - একে আরও বিস্তৃতভাবে তৈরি করতে হবে - গিল্ডের সদস্যদের সঙ্গে বসে
Post a Comment