Monday, September 2, 2013

মুকুন্দরাম কবিকঙ্কন চণ্ডীকাব্য থেকে ৫৫০ বছরের আগের বাংলার সমাজ, Bengal 550 years back, written in Kabikankan Chandi by Mukundaram

নিদয়ার মনের কথা
(নিদয়া, কালকেতুর মা। এই বক্তব্যটি নিদয়া পেশ করছে তাঁর স্বামির কাছে, যখন কালকেতু তাঁর গর্ভে। তাঁর সব কিছুতে অরুচি।)

শুন প্রাণনাথ! কহিয়ে তমারে।
এবে মোর প্রাণ কেমন করে।।(ধ্রু)।।
কৈতে নিজ সাধ বড় লাজ বাসি।
পান্ত ওদনে ব্যঞ্জন বাসী।।
বাথুয়া ঠনঠনি তেলের পাক।
ডগি ডগি লাউ ছোলার শাক।।
মীন চড়চড়ি কুসুম বড়ী।
সরল সফরী ভাজা চিংড়ী।।
যদি ভাল পাই মহিষা দই।
চিনি ফেলি কিছু মিশায়ে খই।।
পাকা চাঁপাকলা করিয়া জড়।
খাইতে মনের সাধ বড়।।
কনকের থালে ওদন শালি।
কাঞ্জিকা সহিত করিয়া মেলি।।
কাঞ্জি ভুঞ্জি কিছু মনেতে ভায়।
চাক চাকা মূলা বেগুণ তায়।।
আমড়া নোয়াড়ি পাকা চালতা।
আমসি কাসন্দী কুল করঞ্জা।।
থোড় উড়ুমদর ইচলি মাচে।
খাইলে মুখের অরুচি ঘুচে।।
হিয়ে দগদগি অন্তরে ভোক।
মুখে নাহি চলে এ বড় শোক।
মনে করি সাধ খাইতে মিঠা।
খীব নারিকেল তিলের পিঠা।।
বসিতে উঠিতে ঘুরয়ে মাথা।
মুখে উঠে হাই কহিতে কথা।।
সখি সাধে যদি বাড়াই পা।
আলাইয়া পড়ে সকল গা।।
দুগ্ধে গুড়ে তিলে মিশায়ে লাউ।
দধির সহিতে খুদের জাউ।।
শুন প্রভু কিছু কহি ওপর।

চিঁড়া চাঁপাকলা দুধের সর।।
Post a Comment