Wednesday, August 15, 2012

বাঙলায় উপেক্ষিত এক শিক্ষা সমীক্ষা৩


পাঠশালায় প্রযুক্তির পাঠদান
টোল অথবা পাঠশালা বন্ধের নিদানে সমালোচকদের যুক্তি ছিল এগুলো ইওরোপিয় বিদ্যালয়গুলোরমত প্রযুক্তিভিত্তিক ছিল না সে সময়ের বহু ভারতীয় তাই প্রযুক্তির জন্য তাকিয়েছিলেন ইওরোপের দিকে মাদ্রাজের সমীক্ষায় পাওয়া পাঠদানের বিষয়গুলো পাই সেগুলির বর্ণনা তুলে দেওয়ার লোভ সামলাতে পারা গেল না পুকুর খোঁড়া থেকে ধোবির কাজ শেখানোরমত হাজারো শিক্ষাদান করাহত পাঠশালাগুলোতে লিটনারের সমীক্ষায় যে সব হাতের কাজ শেখানোর উল্লেখ পাই, সেগুলোর মধ্যে রয়েছে  
buildings, etc. বিষয়ে
stone-cutters, wood woopers (wood cutters), marble mine workers, bamboo cutters, chunam makers, wudders (tank diggers), sawyers brick-layers, metallurgy, iron ore collectors, copper-smiths, iron manufacturers, lead washers, iron forge operators, gold dust collectors, iron furnaces operators, iron-smiths, workers of smelted metal gold-smiths into bars horse-shoe makers, brass-smiths.
Textilesএ ছিল
cotton cleaners, fine cloth weavers, cotton beaters, coarse cloth weavers, cotton carders, chintz weavers, silk makers, carpet weavers, spinners sutrenze, carpet weavers, ladup or penyasees cot tape weavers, cotton spinners cumblee weavers, chay thread makers, thread purdah weavers, chay root diggers (a dye), gunny weavers, rungruaze, or dyers pariah weavers (a very large mudda wada, or dyers in red number), indigo maker, mussalman weavers, barber weavers, dyers in indigo, boyah weavers, loom makers, smooth and glaze cloth, men silk weavers.
Other craftsmenএর মধ্যে ছিল
preparers of earth for bangles, salt makers, bangle makers, earth salt manufacturers, paper makers, salt-petre makers, fire-works makers, arrack distillers, oilmen, collectors of drugs and roots, soap makers, utar makers, druggists.
Miscellaneousএ ছিল
boat-men, sandal makers, fishermen, umbrella makers, rice-beaters, shoe makers, toddy makers, pen painters, preparers of earth for washermen, mat makers, carpenters, washermen, dubbee makers, barbers, winding instrument makers, tailors, seal makers, basket makers, chucklers, mat makers(দ্য বিউটিফুল ট্রি থেকে).
এই সমস্ত প্রযুক্তিগত পাঠদানের বিষয়গুলো থেকে পরিস্কার ভারতের পাঠশালাগুলোতে তখন কী পড়ানো হত উল্টোদিকে বাঙলার ইওরোপপন্থী মধ্যবিত্ত-উচ্চমধ্যবিত্তরা রামমোহন রায়, দ্বারকানাথ ঠাকুর, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরেরমত নানান প্রখ্যাত ভারতীয় মুগ্ধ চোখে ব্রিটিশ প্রযুক্তির পানে তাকিয়ে রয়েছেন পশ্চিমি প্রযুক্তিকেই সর্বরোগহর বটিকা ভাবছেন
ধরমপালের নানান গবেষণায় আমরা দেখেছি ভারতীয় জ্ঞাণবিজ্ঞাণকে নথিকরণ করে কী ভাবে ইওরোপের টুটাফুটো প্রযুক্তির রোগভোগ সারাতে কাজে লেগেছে নথিকরণের কাজ বিশ্ববিদ্যলয়ের অধ্যাপকেদের তত্বাবধানে হচ্ছে সেগুলো দেখছেন ইওরোপের বুদ্ধিজীবিরা(পাদপূরণ অংশ) ধরমপাল সে সময়ের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যসূচীর বিষয়গুলি বিশদে উল্লেখ করছেন সে তথ্য আমাদের কৌতুহলী করে(এই প্রবন্ধের শেষ অংশ) বাঙলার নবজাগরণের আগ্রদূতেরা ইওরোপের কোন প্রযুক্তি চেয়ে বাঙলার নানান পরিকাঠামো ধংসে ঘৃতাহুতি দিয়েছেন সেই প্রশ্ন আজও ওঠেনি
Post a Comment