Saturday, October 1, 2016

গ্রামচর্চা - ওয়াটাগ নথি করণ উদ্যোগ

সমাজের সদস্যদের চোখে নিজেদের সমাজের নানান উদ্যম নথিকরণকর্ম
গ্রামজীবনকে ইওরোপিয় চশমায় এক তরফা দেখার ভদ্রলোকিয় দিন শেষ
ফিরে আসুক শিল্প বিপ্লব পূর্বসময়ের গ্রাম বাংলার সমাজ, উতপাদন ব্যবস্থা

.
.
.
.
রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে ওয়াটাগের সদস্য সংগঠন, কলাবতী মুদ্রার গ্রামচর্চা সম্মেলন শেষে, সভাপতি মধুমঙ্গল মালাকারের নেতৃত্বে ওয়াটাগের দপ্তর, দিনাজপুরের মুষ্কিপুরে ৯ আশ্বিন, ১৪২৩এর একটি বৈঠকে নথিকরণ পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। সেটি আমরা ওয়াটাগের সংঘের, কলাবতী মুদ্রার বন্ধুদের জন্য তুলে দিলাম। এই সিদ্ধান্ত সংস্কৃতকরণ, পরিমার্জন, পরিবর্ধনে তাঁদের সক্কলের মন্তব্য, পরিকল্পনা এবং সহায়তা এই নথির কাজটিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে।

গ্রামের সংস্কৃতি উতপাদন ব্যবস্থা আচার-আচরণ ধর্ম মেলা উতসব গ্রামের ইতিহাস গল্প পারিবারিক ইতিহাস গ্রামের সম্পদ বৈচিত্র কৃষি জীবনযাত্রা ইত্যাদি হাজারো বিষয় নথিবদ্ধ করার কাজের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওয়াটাগের যুবা কিশোর সদস্য দল। কাজটা আপাতত শুরু হচ্ছে দিনাজপুর জেলায়। এই কাজটি বেশ কিছুদিন চলার পর তার ফলাফল দেখে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা হবে অন্যান্য জেলায়; তবে আগামী তিন বছরের আগে নয়; শুধুই দিনাজপুরের নানান দিক নথিকরণের কাজ চলবে এই সময়ক্রমে।

ওয়াটাগের যুবা সদস্যরা, তাদের অঞ্চলে উপরের বিভিন্ন বিষয় নথি করবেন চলচ্চিত্র, ভাষ্য, লিখিত এবং স্থির ছবিতে। এত দিন শিক্ষিত মধ্যবিত্ত তাদের মত করে, তাদের ঔপনিবেশিক দৃষ্টিভঙ্গীতে গ্রাম সমাজ তাদের বিকাশ এবং জীবনযাত্রা বলার লেখার চেষ্টা করেছেন - যার ফলিত প্রকাশ ঘটেছে জাতিবাদী লোকসংস্কৃতি চর্চায়। এবারে গ্রাম সমাজের সদস্যরা নিজেরা নিজেদের সমাজের নানান দিক নিজেদের মত করে নথি করণ করবেন এবং বিশ্লেষণ করবেন - সমান্তরালভাবে ভদ্রলোকেরা করুণ তাদের মত করে - কিন্তু গ্রামজীবনকে ইওরোপিয় চশমায় এক তরফা দেখার দিন শেষ।

যে যুবা কিশোর সদস্যরা এই কাজে জুড়বেন, তাদের থাকছে একটি স্মার্ট ফোন। তাদের পথ দেখাবেন সঙ্ঘ আর ওয়াটাগের উপদেষ্টা পর্ষদের অরূপ শঙ্কর মৈত্র, দীপঙ্কর দে এবং বিশ্বেন্দু নন্দ এবং অন্যান্য মানুষেরা।

যুবা নথিকরণ দলের নেতৃত্ব দেবেন মালাকার সমাজের নবীন গৌরব, গৌরব মালাকার। তিনি নিজের যোগ্যতাতেই এই কাজ করে চলেছেন গত কয়েক মাস ধরে নিজের মত করে ওয়াটাগের পরিকল্পনায়।

এই নথিগুলি নিয়মিত প্রকাশ পাবে ইন্টারনেটে-কখোনো লিখিত, কখোনো শ্রাব্য কখোনো চলচ্চিত্র মাধ্যমে।

সঙ্ঘ, ওয়াটাগ এবং কলাবতী মুদ্রা বেসরকারি দাতা সংগঠন বা সরকারি দান নেয় না - চলে বন্ধুবান্ধবদের এবং সদস্যদের সাহায্যে।

এই কাজে প্রয়োজন দিনাজপুরের দপ্তরে একটা বড় হার্ডডিস্ক সহ কম্পিউটার, ১০টি ৩২ জিবি মেমরি চিপ।

শিল্প বিপ্লব পূর্বসময়ের বাংলার সমাজ, উতপাদন ব্যবস্থা ফিরিয়ে আনতে এই কাজে এগিয়ে আসুন ওয়াটাগের বন্ধুরা বুদ্ধি পরিশ্রম সম্পদ দিয়ে

জয় গুরু!
জয় বাংলা!
জয় বাঙলার গ্রাম সমাজ!
জয় বাঙলার শিল্পবিপ্লবপূর্ব নিজস্ব উতপাদন বিতরণ ব্যবস্থা!
জয় নতুন বাঙলার কাজের পরিবেশ!
জয় বাঙলার প্রযুক্তি!
Post a Comment